সফল হবার পাঁচটি উপায়(Recommended) Success Story Bangla - BD Express

 আজ আমি পাঁচটা সফল হওয়ার উপায় তোমাদের সাথে শেয়ার করব

Bangla Success Story
Bangla Success Story



এক নাম্বার ডিসিপ্লিন বা শৃঙ্খলা


 ডিসিপ্লিন বা শৃঙ্খলা এমন একটা শব্দ যেটা আমাদের সফলতা  এর ভিত তৈরী করে । যেকোনো সফল মানুষকে দেখে নাও, সে বড় ব্যাবসায়ী হোক কিংবা বড় খেলোয়াড় ,বা  বড় আর্টিস্ট বা কোনো টপার  হোক না কেন। সে তার লাইফ এ একটা ডিসিপ্লিন বা শৃঙ্খলা অবশ্যই অনুসরণ করে । আর এই ডিসিপ্লিন বা শৃঙ্খলা শুধুমাত্র সফলতার ভিত তৈরী করে না, বরং সফল হয়ে যাওয়ার পরে সেটাকে ধরে রাখতেও অনেক সাহায্য করে । এরকমও অনেক উদাহরণ আছে । যারা সফল হয়ে যাবার পরে লাইফ এ শুধুমাত্র ডিসিপ্লিন বা শৃঙ্খলা এর অভাবে আবার সব কিছু হারিয়ে ফেলেছে । 

$ads={1}


সকালে ঘুম থেকে টাইম এ ওঠেএবং সবাই সবার ধর্মীয় কাজ শেরে, ব্যায়াম বা শরীর চর্চা করা হোক । কিংবা আজকের কাজ আজকেই করব এই মন মানষিক নিজের মধ্যে ধরে রাখা হোক । এই সবকিছুই কিন্তু ডিসিপ্লিন বা শৃঙ্খলা এর মধ্যেই পড়ে । একটা ডিসিপ্লিন বা শৃঙ্খলা জীবন এর মধ্যে এছাড়াও আরও অনেক কিছু পরে । যেগুলো তোমরা আশা করি প্রত্যেকেই জানো । তাই যে মানুষ তার নিজের লাইফে ডিসিপ্লিন বা শৃঙ্খলা থাকে । তার সফল হওয়ার চান্স এবং সফলতা ধরে রাখার চান্স এই দুটোই কিন্তু অন্যদের থেকে একটু হলেও বেড়ে যায় । এবার বলি



দুই নাম্বার বলতে না পারার ক্ষমতা 

সফল হতে চাইলে কিন্তু আমাদের অনেক ক্ষেত্রে না বলতে শিখতে হয় । সবার আগে দুটো জিনিস আমাদের মনে রাখতে হবে । তার মধ্যে একটা জিনিস তোমরা অনেকবার শুনেছো , সেটা হলো তুমি হাজার চেষ্টা করলেও সবাইকে খুশি করতে পারবে না । কিন্তু দু নম্বর জিনিসটা তোমরা কারোর মুখে খুব একটা শুনে থাকবে না ।  কিন্তু  সেটাও সমানই গুরুত্বপূর্ণ । সেটা হলো তুমি হাজার চেষ্টা করলেও নিজের মনকে সব সময় খুশি করতে পারবে না । তাই আমাদের যেমন মাঝে মাঝে আমাদের ওপর দিকে থাকা কিছু মানুষকে না বলতে শিখতে হবে । তেমনি মাঝে মাঝে নিজের মন টা কেও না বলতে শিখতে হবে । একটা ছোট্ট উদাহরণ দিয়ে এই দুরকম না বলার ব্যাপারটা তোমাদের বুঝিয়ে দিই । 





ধরো তোমার পড়ার টাইমে তোমার একটা বন্ধু তোমাকে ফোন করে বলল , আরে এত পড়ে কি করবি ? আজকের মতো  পড়াশোনা রাখ । চল একটু আড্ডা মেরে আসি ।  কিন্তু তোমার পড়াটা সেদিন খুব গুরুত্বপূর্ণ। তো এক্ষেত্রে তুমি যদি তোমার বন্ধুকে খুশি করতে চাও তাহলে পড়াশোনা সেদিনকার মতো শেষ করে দিয়ে তার সাথে যেতে হবে ।  তাই এক্ষেত্রে তোমাকে না বলতে শিখতে হবে । কিন্তু এই না বলাটা অনেক সহজ। 

 কঠিনটা এবার আসবে। তুমি তোমার বন্ধুকে না বলে দিলে সে রেখে দিলো । এবার যেই তুমি পড়তে বসলে একটু পরে তোমার মন তোমাকে বলতে লাগলো এতো পড়ে কি হবে ? এখন একটু পড়াটা বাদ দে , চল একটু মোবাইল ঘাটি । এক্ষেত্রে কিন্তু না বলাটা বেশ কঠিন । কিন্তু তুমি যদি এই ক্ষেত্রে একবার না বলতে শিখে যাও , তাহলে কিন্তু বাইরের লেবেলে না বলাটা তোমার কাছে কোন ব্যাপারই থাকবে না । আশা করি তোমরা নিজের সাথে পুরো ব্যাপারটা রিলেট করতে পারছ । তাই যেখানে তোমার ক্যারিয়ার, হেলথ, ইমোশন, ফিউচার ক্ষতি হবে বলে তুমি মনে করবে সেখানে না বলতে শিখে যাও । সেটা বাইরের লেবেলে হোক কিংবা নিজের মনের এর লেভেলে এ হোক  । 





তিন নাম্বার কমফোর্ট জোন বা আরাম দায়ক


কমফোর্ট জোন আর সফল  এই দুটো কিন্তু সম্পূর্ণ দুই জিনিস । হয় আমরা কমফোর্ট জোন কে বেচে নিয়ে আরাম করতে পারি । না হয় আমরা কমফোর্ট জোন থেকে বেরিয়ে একশন নিতে পারি, এবং সফলতা  এর পথে এগিয়ে যেতে পারি। আর কমফোর্ট জোন এর মধ্যে বসে থাকা মানে কিন্তু শুধু ফিজিক্যাল কিছু  নয় । অনেক সময় আমরা কোন একটা কাজকে করে দেখার আগে মন এর লেভেল এ হেরে যাই বা ভয় পেয়ে গিয়ে সেই কাজটা করার রিস্কই নিই না । আবার অনেক সময় আমরা ফিজিক্যাল লেভেলে কঠোর পরিশ্রম করতে ভয় পাই । যদিও সেটাও মন মানষিক  এর কমফোর্ট জোন থেকেই তৈরি হয় । কিন্তু যে কোন সফল ব্যক্তি কে মানুষকে দেখলে বুঝতে পারবে তারা নিজের লাইফ এ বারবার কমফোর্ট জোন কে ব্রেক করে । তারা বার বার নিজেকে একটু বেশি উন্নতি  করে, নিজেকে  আরেকটু বেশি প্রচেষ্টা দেওয়ার জন্য । 


আর এই করতে করতে তাদের কমফোর্ট জোন এর বৃত্ত টা অনেক বড় হয়ে যায় । তুমিও যদি সফলতা এর পথে অন্যদের থেকে একটু এগিয়ে থাকতে চাও, তাহলে আজই নিজের কমফোর্ট জোন থেকে বেরিয়ে একটু কঠোর পরিশ্রম করো।





 নাম্বার চার  কিছু করার আগে এক্সপার্ট এর পরামর্শ নেওয়া


 সফল ব্যক্তি-রা  যখন দেখে যে একটা কাজে তার যতটা বুদ্ধি  লাগানোর ক্ষমতা ছিল, সে লাগিয়ে ফেলেছে তবুও সে সফল হচ্ছে না । তখন তারা সরাসরি করে, কাজ দেওয়ার আগে সেই ফিল্ডের একজন এক্সপার্টের থেকে পরামর্শ অবশ্যই নেয় ।  একটা ছোট্ট উদাহরণ দিই , ধরো তুমি তোমার বাড়ির দেওয়ালে একটা পেরেক পুঁতবে ।  তো অনেকক্ষণ ধরে হাতুড়ি নিয়ে পেড়েকটা পোঁছার চেষ্টা করছো। পেরেক বেঁকে কিন্তু কিছুতেই পেরেক দেওয়ালের ভেতরে ঢুকছে না । তুমি সব রকম পেরেক এবং সব রকম হাতুড়ি দিয়ে চেষ্টা করে ফেলেছো , সাধারণ মানুষ হলে কি করবে তখন তা ছেড়ে দেবে ? 





একবার এটা বোঝার চেষ্টা করেছো,যে পেরেক বেঁকে যাচ্ছে কিন্তু কিছুতেই পেরেক দেওয়ালের ভেতরে ঢুকছে না । তুমি সব রকম পেরেক এবং সব রকম হাতুড়ি দিয়ে চেষ্টা করে ফেলেছো ।  সাধারণ মানুষ হলে কি করবে হার মেনে নেবে। আর এতক্ষণ ধরে তার করা খুটিনাটি  বেকার হয়ে যাবে । কিন্তু  সফলতা  মেন্টালিটির মানুষেরা কি করবে ? সেই কাজে এক্সপার্ট  একজনকে নিয়ে এসে দেওয়ালটা দেখাবে । হয়তো দেখা যাবে তোমার মাথায় যেটা আসেনি তার মাথায় সেটা আসবে । সে হয়তো দেওয়ালটা ভালোভাবে দেখে খুঁজে বার করবে । যে তুমি যেখানে এতক্ষণ ধরে পেরেক পোঁতার চেষ্টা করছিলে সেখানে একটা পিলার আছে ।  তাই এতবার পেরেক এবং হাতুড়ি বদলেও তুমি সফল হতে পারছিলে না । সে কি করবে তার থেকে কয়েক ইঞ্চি দূরে তোমাকে পেড়েকটা পোতার পরামর্শ দেবে । আর তোমার কাজটা সব হয়ে যাবে । এটা একটা ছোট্ট উদাহরণ ছিল । 


 উদাহরণ টা দেওয়ার উদ্দেশ্য এটাই ছিল যে, যখন দেখবে কোনো একটা কাজে বিভিন্নভাবে চেষ্টা করার পরেও তুমি সফল হতে পারছো না, তখন হাল ছেড়ে দেওয়ার আগে একবার অন্তত কারোর পরামর্শ অবশ্যই নিও । কে বলতে পারে হয়তো সফলতা তোমার থেকে মাত্র কয়েক ইঞ্চি দূরেই রয়েছে । 


$ads={2}

 নাম্বার পাঁচ ধৈর্য ধারণ 


সবকিছু করার পরেও যদি আমাদের মধ্যে ধৈর্য্য না থাকে, তাহলে সফলতা ঠিক আমাদের পাশ ঘেঁষে বেরিয়ে যাবে । আমরা কিন্তু সেটাকে ধরতে পারবো না, রেজাল্ট পাওয়ার জন্য ধৈর্য ধরতেই হবে । আর একটা কথা তো আমরা ছোট থেকেই শুনে আসছি যে ধৈর্যের ফল কিন্তু সব সময় মিষ্টিই হয় । তাই সফল হতে গেলে আমাদের ধৈর্য ক্ষমতা কিন্তু বাড়াতেই হবে । 



এই ব্লগ টি পড়ে তোমার কাছে কেমন লাগলো তা অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। এবং এর একটি শেয়ার করবেন, যেন এই ব্লগ টি অন্য সবাই পড়তে পারে। আজ এতটুকুই আবারও শীঘ্রই কথা হবে অন্য একটি ব্লগ নিয়ে। 

Previous Post
Next Post

Hey, I'm Safayat Antor and I am a creative content creator. This is my Blog site.I always try to write something new, Which no one wrote before. Because everyone always try to learn something new. facebook blogger

0 Comments:

⚠️ এমন কোনো মন্তব্য করবেন না যাতে, অন্য কোনো ব্যাক্তির সমস্যা হয়।